ঢাকা, বাংলাদেশ বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৪৪ অপরাহ্ন
টানা বর্ষণে কক্সবাজারে ব্যাপক ক্ষতি !
কক্সবাজার প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ৩১ জুলাই, ২০২১, ০১:২৯:৫৫ পিএম
  • / ৩৬ বার খবরটি পড়া হয়েছে

টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে কক্সবাজারে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। শুক্রবার ৩০ জুলাই সকাল থেকে প্লাবিত এলাকা হতে পানি নামতে শুরু করেছে। সেই সাথে ভেসে উঠছে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি চিত্র। বিধ্বস্ত ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাট, ভেসে গেছে পুকুর ও ঘেরের মাছ। এতে দূর্গত মানুষের দূর্ভোগের শেষ নেই।

টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলের প্রথম দিন থেকে এসব দূর্গত মানুষের সহায়তায় মাঠে ছিল কক্সবাজার জেলা প্রশাসক। প্রতিদিনই পানিবন্দি মানুষের কাছে পৌঁছে দিয়েছে শুকনো খাবার। এছাড়া মানুষকে নিরাপদ আশ্রয় নিয়ে আসা এবং সব ধরণের সহায়তা করে আসছে। আর দূর্গতদের দূর্ভোগ লাঘবের জন্য ইতিমধ্যে অতিরিক্ত চাহিদাও প্রেরণ করা হয়েছে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে।
এদিকে, শনিবার ও শুক্রবার কক্সবাজারের বিভিন্ন এলাকায় দূর্গত মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম তদারকি এবং ত্রাণ বিতরণ করেন। এছাড়া করোনার কারণে কর্মহীনদের মাঝেও প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন জেলা প্রশাসক।
কক্সবাজার শহরের সমিতি পাড়ায় খাদ্য সামগ্রী বিতরণকালে জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ বলেন, টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে কক্সবাজারের ৭১টি ইউনিয়নের মধ্যে ৫১টি ইউনিয়নের ৫১৮ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। কয়েকদিন পানিবন্দি ছিল প্রায় দুই লাখের অধিক মানুষ। এতে ৩০০ কাঁচা ঘরসহ রাস্তা, কৃষি, মৎস্য ও বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কিন্তু শুক্রবার সকাল থেকে প্লাবিত এলাকা থেকে পানি নেমে যেতে শুরু করেছে। এর ফলে সব ধরণের ক্ষয়ক্ষতি চিত্র ভেসে উঠছে। এখন সব উপজেলা থেকে ক্ষয়ক্ষতির তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে।

জেলা প্রশাসক আরও বলেন, দূর্গত মানুষের কষ্ট লাঘবে সরকারি সহায়তা হিসেবে ৩০০ মেট্রিক টন চাল, ২০০০ প্যাকেট শুকনো খাবার এবং নগদ ১৫ লক্ষ টাকা উপজেলাগুলোকে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসাররা স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে ত্রাণ বিতরণ করছেন। পাশাপাশি কিছু বেসরকারি সংস্থাও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত প্রশাসনের ত্রাণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।
কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ আরও বলেন, করোনায় কর্মহীনরা লোকলজ্জার ভয়ে যারা লাইনে দাঁড়িয়ে ত্রাণ নিতে চাননা; তারা জাতীয় হেল্পলাইন ৩৩৩ তে ফোন করলে গোপনীয়তা বজায় রেখে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হবে। সর্বোপরি মানুষের বিপদে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সরকার তথা স্থানীয় প্রশাসন তাদের পাশে আছে। বন্যা পরবর্তী ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করে স্বাস্থ্য সেবা, রাস্তাঘাট, কৃষি, মৎস্য, লবণ, ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ সংস্কার করা হবে।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় করোনায় কর্মহীন ও বন্যা কবলিত মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে জেলা আওয়ামী লীগ। পাহাড়ে ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করা মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে এনে আশ্রয় কেন্দ্রে রাখা হয়েছে। তাদের প্রতিদিন রান্না করা খাবার দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই মুহূর্তে

টাঙ্গাইল দুই লক্ষাধিক টাকার নিষিদ্ধ চায়না জাল ধ্বংস
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
দৌলতখান হাসপাতালে এক্স-রে মেশিনের কার্যক্রম বন্ধ ১৩ বছর
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
সারাদেশে পণ্যবাহী পরিবহন শ্রমিকদের কর্মবিরতি
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
ঘরে বসে বিএনপি কৃষক, শ্রমিকদের জন্য মায়াকান্না করে: ওবায়দুল কাদের
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
লালমনিরহাটে পুনাকের উদ্যোগে নকশিকাঁথা সেলাই প্রশিক্ষণ
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
কক্সবাজারে রেলপথ মন্ত্রী
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
নড়াইলে মাদক মামলায় এক নারীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
স্ত্রী হত্যার দায়ে নীলফামারীতে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
নোয়াখালীতে ইয়াবাসহ পুলিশ কনস্টেবল গ্রেফতার
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
এটিএম’র লক ভেঙ্গে ২৪ লক্ষাধিক টাকা ছিনতাই, গ্রেফতার ৩
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
খবরের আর্কাইভ