ঢাকা, বাংলাদেশ সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:৫৮ অপরাহ্ন
উৎপাদনশীল খাতে প্রবাসী বিনিয়োগের প্রয়োজনীয়তা
বাংলাদেশ ব্যুরো
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২০ ডিসেম্বর, ২০২১, ০৩:৫৪:৪৬ পিএম
  • / ২৭ বার খবরটি পড়া হয়েছে

ড. ফজলে এলাহী মোহাম্মদ ফয়সাল

কোনো দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের সঙ্গে সঞ্চয় ও বিনিয়োগের সরাসরি সম্পর্ক রয়েছে। উৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগ বৃদ্ধি পেলে কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে এবং জনগণের আয়স্তর বৃদ্ধি পাবে। সুতরাং উৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগ বৃদ্ধির মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং আয়স্তর বৃদ্ধি করা প্রয়োজন।

প্রবাসীরা বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বিরাট অবদান রেখে চলেছেন। বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ১ কোটি ২০ লাখেরও বেশি বাংলাদেশি প্রবাসী রয়েছেন। তাদের শ্রম-ঘামের অর্থ প্রতিদিন দেশের বৈদেশিক মুদ্রার ভান্ডারে জমা হয়। তাদের কেউ অর্থ পাঠান দেশে পুরো সংসারের খরচ মেটানোর জন্য, কেউ পাঠান সন্তানের লেখাপড়ার জন্য। কেউ আবার বাড়ি করেন, গাড়ি কেনেন। এখন তারা শিল্পপ্রতিষ্ঠান স্থাপনের জন্য বিনিয়োগ করতে পারেন। তারা আমাদের উৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগ করলে এই দেশটার উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী ২০২০ সালে বাংলাদেশের সর্বমোট রেমিট্যান্সের পরিমাণ ছিল প্রায় ১ লাখ ৮৪ হাজার ৫৩২ কোটি টাকা, যা বাংলাদেশের জিডিপি এর প্রায় ৬.৬ শতাংশ। প্রবাসীদের কাছ থেকে প্রাপ্ত অর্থকে যদি উৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগ করা সম্ভব হয়, তাহলে নিঃসন্দেহে জাতীয় অর্থনীতিতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে এবং প্রবাসীদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের সঙ্গে দেশের সম্পর্ক বিদ্যমান থাকবে। আর প্রবাসীদের মাধ্যমে প্রেরিত অর্থকে উৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগ করা সম্ভব না হলে প্রবাসীদের পরবর্তী প্রজন্মের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক না থাকার সম্ভাবনাই বেশি এবং এক্ষেত্রে একসময় রেমিট্যান্সের প্রবাহ হ্রাস পাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। প্রবাসীদের পরবর্তী প্রজন্মের সঙ্গে দেশের সম্পর্ক না থাকলে তারা দেশে অর্থ প্রেরণ হ্রাস করবেন অথবা বন্ধ করবেন—এটাই স্বাভাবিক। প্রবাসীরা যদি কোনো প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তা অথবা বিনিয়োগকারী হয়ে থাকেন, তাহলে প্রবাসী এবং পরবর্তী প্রজন্মের সঙ্গে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিদ্যমান থাকবে।

বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বে অবস্থিত সিলেট অঞ্চলে প্রবাসীরা ইতিপূর্বে অনুত্পাদনশীল খাতে (যেমন :বিলাসবহুল বাড়ি নির্মাণ, কমিউনিটি সেন্টার প্রতিষ্ঠা ইত্যাদি) বিপুল বিনিয়োগ করেছেন এবং বর্তমানে প্রবাসীদের পরবর্তী প্রজন্মের অনেকেই ঐ সম্পত্তিগুলো বিক্রয় করতে আগ্রহী এবং বিক্রয়ের মাধ্যমে প্রাপ্ত অর্থ প্রবাসীরা যে দেশে অবস্থান করছেন সেখানে বিনিয়োগ করতে আগ্রহ প্রকাশ করছেন। এতে প্রবাসী কর্তৃক প্রেরিত রেমিট্যান্সের পরিমাণ ভবিষ্যতে হ্রাস পাওয়ার আশঙ্কা অমূলক নয়। সুতরাং দেশের স্বার্থেই প্রবাসীদেরকে দেশে বিনিয়োগে উত্সাহ প্রদান করা উচিত।

সিলেট অঞ্চলের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ১৮টি প্রতিষ্ঠান আলোচনায় রয়েছে।সিলেট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি সিলেট অঞ্চলের প্রবাসীদেরকে দেশে উৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগে আগ্রহী করার জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছে। ইতিপূর্বে সিলেট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি প্রবাসীদের বিনিয়োগে উত্সাহ প্রদানের লক্ষ্যে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করেছে। সিলেট অঞ্চলের উৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে যারা অবদান রেখে চলেছেন তাদের অন্যতম জনাব কল্লোল আহমেদ এবং জনাব কয়ছার আহমেদ। সম্প্রতি তাদের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। একজন দীর্ঘ ৩১ বছর যাবৎ আমেরিকার নিউ ইয়র্কে অবস্থান করছেন। পৈতৃক নিবাস গোলাপগঞ্জের ভাদেশ্বর। ২০১৭ সালে প্রতিষ্ঠিত সিলেট সদর উপজেলার বলাউরায় অবস্থিত প্রিমিয়াম ফিশ অ্যান্ড এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড নামক প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের ২য় বর্ষ, ১ম সেমিস্টারে অধ্যয়নরত ছাত্রদের একটি দলের সঙ্গে সেই প্রতিষ্ঠানটি পরিদর্শনের সুযোগ হলো। প্রতিষ্ঠানটি বেশ পরিচ্ছন্ন। প্রতিষ্ঠানটি রান্নার জন্য সরাসরি প্রস্তুতকৃত মাছ এবং খাদ্যদ্রব্য তৈরি এবং সরাসরি আমেরিকা, কানাডা, ইংল্যান্ড ও সিঙ্গাপুরে রপ্তানি করে থাকে। প্রতিষ্ঠানটির ফিশ প্রসেসিং প্ল্যান্ট, ফুড প্রসেসিং প্ল্যান্ট, চিপস প্রসেসিং প্ল্যান্ট পরিদর্শন করলাম। সিলেট অঞ্চলের বিভিন্ন নদী, নালা, হাওর, খাল, বিল ইত্যাদি থেকে সংগৃহীত বিভিন্ন ধরনের ছোট মাছ রান্নার জন্য প্রক্রিয়াজাত করে প্রতিষ্ঠানটি রপ্তানি করে থাকে। তা ছাড়াও রান্নার জন্য সরাসরি তৈরি বিভিন্ন খাদ্যবস্তু (যেমন :পরোটা, সমুচা, শিঙাড়া ইত্যাদি) প্রক্রিয়াজাত করে রপ্তানি করে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি কর্মরত আছেন প্রায় ২০০ কর্মকর্তা-কর্মচারী।

২০০৬ সালে স্থাপিত সিলেট ওয়েল্ডিং ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি সিলেট অঞ্চলের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান। ২০১২ সাল থেকে প্রতিষ্ঠানটি খাদিমনগরীর বিসিক শিল্প এলাকায় উৎপাদন করে যাচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটি ম্যানেজিং ডাইরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ইংল্যান্ড প্রবাসী জনাব কয়ছর আহমেদ। পৈতৃক নিবাস বালাগঞ্জের গহরপুরে। প্রতিষ্ঠানটি রান্নার জন্য বিভিন্ন ধরনের চুলা উৎপাদন করে সরাসরি ইংল্যান্ডে রপ্তানি করে থাকে। প্রতিষ্ঠানটির উৎপাদিত পণ্যগুলো হলো—১২ বার্নার চুলা, ১১ বার্নার চুলা, ৯ বার্নার চুলা, টানডুর বার্নার কুকার, স্টক পট কুকার, বারবিকিউ কুকার ইত্যাদি। তাদের অনুসরণ এবং অনুকরণ করে যদি প্রবাসীরা দেশে উৎপাদনশীল খাতে বেশি বেশি বিনিয়োগ করেন, তাহলে শক্তিশালী হবে বাংলাদেশের অর্থনীতি।

গত নভেম্বর মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলনে অংশ নিতে স্কটল্যান্ড যান। সেখানে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা তাকে এক নাগরিক সংবর্ধনা প্রদান করেন। এই সময় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করার জন্য বিশ্বব্যাপী প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতি আহ্বান জানান। সে সময় তিনি তাদের আশ্বাস দেন যে, বিনিয়োগের ক্ষেত্রে যেসব প্রতিবন্ধকতা আছে তা খুঁজে বের করে সমাধানের উদ্যোগ নেওয়া হবে। প্রবাসীদের জন্য সরকার বেশ কিছু প্রশংসনীয় উদ্যোগ নিয়েছে। যেমন— যথাযথ চ্যানেল ব্যবহার করে বিদেশ থেকে টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে ২ শতাংশ প্রণোদনা, তাদের সুবিধার্থে একটি পৃথক ব্যাংক প্রতিষ্ঠা ইত্যাদি। তবে শুধু প্রবাসী বাংলাদেশি নয়, দেশি-বিদেশি যে কোনো বিনিয়োগ আকর্ষণ করতে হলে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা দূর করাসহ জ্বালানি নিরাপত্তা আগে নিশ্চিত করতে হবে। ঘুষ, দুর্নীতি ও চাঁদাবাজি বন্ধ করতে হবে।

বাংলাদেশি প্রবাসীরা বিনিয়োগ বন্ড ও প্রিমিয়াম বন্ডে বিনিয়োগ করতে পারেন। তারা নিজ নিজ এলাকায় চাহিদা অনুযায়ী গড়ে তুলতে পারেন বিভিন্ন কলকারখানা। দেশে প্রায় ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্হাপিত হচ্ছে। সেখানেও তারা বিনিয়োগ করতে পারেন। বিশেষ করে তৃতীয় ও চতুর্থ প্রজন্মের তরুণ প্রবাসীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের ব্যাপারে আরো উত্সাহিত করতে হবে, যাতে প্রবাসীদের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক যুগের পর যুগ অটুট থাকে। বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ১৮ খাতে কর অবকাশ রয়েছে। শিল্প ও প্রতিষ্ঠান স্হাপনে রয়েছে কর সুবিধা। এসব ব্যাপারে প্রবাসী বাংলাদেশিদের অবগত করানোটাও আমাদের নৈতিক দায়িত্ব।

লেখক: অধ্যাপক, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগ, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই মুহূর্তে

২০২২ সাল হবে মেগা প্রকল্প উদ্বোধনের বছর : ওবায়দুল কাদের
রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১
রাজধানীর বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেলে চলছে উচ্ছেদে অভিযান
রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১
শৈত্যপ্রবাহ দিয়ে শুরু হতে পারে নতুন বছর
রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১
অসুস্থ বাচ্চার চিকিৎসার টাকা জোগাড়ে কক্সবাজারে এসেছিলেন সেই নারী
রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১
টার্গেটের মধ্যেই পদ্মা সেতু উদ্বোধন : কাদের
রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১
ভোট কেন্দ্র না ছাড়লে সাংবাদিকদের আটকের হুমকি
রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১
বাংলাদেশ টেলিভিশনের আরো ৬টি চ্যানেল চালু হচ্ছে
রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১
৬০ লাখ টাকা দাও, নৌকার মনোনয়ন দেবো !
রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১
টিকিট কেটে নগর পরিবহনে চড়লেন দুই মেয়র
রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১
লঞ্চে আগুন : মালিকসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা
রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১
খবরের আর্কাইভ