ঢাকা, বাংলাদেশ শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:৩৩ অপরাহ্ন
আবেগ আর ভালোবাসা দিয়ে মোড়ানো জম্বি রহস্য
কলকাতা টিভি ডেস্ক:
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০২১, ০৩:৩১:০০ পিএম
  • / ৪৪ বার খবরটি পড়া হয়েছে

জম্বি আসলে কী? এইটা ভুত না অন্য কিছু? ভূতের কিছু বৈশিষ্ট্য আছে। যেমন- ভূত অদৃশ্য হতে পারে, আবার চাইলে গায়েবি অ্যাটাকও করতে পারে! ভূতকে বশে আনার বা ঘাড় থেকে নামানোর বেসিক্যালি একটাই ওয়ে দেখতে পাওয়া যায়.. যে যার রিলিজিউন অনুযায়ী ধর্মগ্রন্থ থেকে ইন্সট্রাকশন নিয়ে সেগুলো ভূত তাড়ানোর কাজে ব্যবহার করা।

ভূতের অনেক ক্ষমতা, কোন চিপা থেকে বের হয়ে কখন আপনার ঘাড় মটকে দেয় আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না! তবে জম্বি সেক্ষেত্রে আলাদা। জম্বিদের সেরকম কোন প্যারানরমাল ক্ষমতা নেই। তারা হচ্ছে ডিফারেন্ট ক্যাটাগরির ভূত যাদের প্রায় মানুষই বলা যায়, কিন্তু মানুষ না। তাদের প্রধান কাজ হচ্ছে সামনে যাকে পাবে তাকে ধরে কামড়ানো। তাদের শুধু ব্রেইনটাই সচল থাকে, যার কারনে মাথা ছাড়া শরীরের অন্য কোন জায়গায় গুলি করলে কিচ্ছু হয় না। সেজন্য জম্বিদের গুলি করলে শুধু তাদের মাথাতেই করতে হয়।

এই জম্বি নিয়ে অনেক সিনেমা নির্মিত হয়েছে। তবে জোম্বি সিনেমার ক্ষেত্রে এক নতুন মাত্রা যোগ করেছিল কোরিয়ান জোম্বি সিনেমা ‘ট্রেন টু বুসান’ । শুধু দক্ষিণ কোরিয়া নয়, সারা বিশ্বে সাড়া ফেলে দিয়েছিল এই সিনেমাটি।

দক্ষিণ কোরিয়ার একটি বায়োটেক কোম্পানিতে লিকেজ হওয়ার পর এক ধরনের ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে। ভাইরাসের সংস্পর্শে আসার পর পরই মানুষ জম্বিতে পরিণত হচ্ছে। বিষয়টি নিয়েই নির্মিত হয়েছে ‘ট্রেন টু বুসান’ নামের চলচ্চিত্রটি।

সিওক-উ একজন ডিভোর্সড ফান্ড ম্যানেজার। তার বেশ ফুটফুটে একটা মেয়ে রয়েছে যার নাম সু-আন। সে তার বাবার সাথেই থাকে। অফিস-বাসা , বাসা-অফিস করতে করতেই সিওক-উ এর দিন যায়। মেয়েকে দেবার মত সময়ও তার হাতে নেই। বাবার দায়িত্ব কর্তব্য সে পালন করে শুধুমাত্র জন্মদিনে গিফট দিয়েই। অফিসের কাজের পেরেশানিতে জব্দ বাবা মেয়ের বার্থডেতে গিফট দিতে গিয়ে আবারও জব্দ হয়ে যায় যখন সে দেখতে পায় ভুলে গতবছরের দেওয়া সেই একই গিফট এবারও নিয়ে এসেছে মেয়ের বার্থডেতে গিফট দেওয়ার জন্য। বিব্রত বাবা মেয়ের মলিন মুখ দেখে বলে, “বলো মা, কী চাই তোমার?”

মেয়ে গাল ফুলিয়ে তখন বাবার কাছে আবদার করে গিফট যদি দিতেই হয় তবে তাকে বুসানে মায়ের কাছে নিয়ে যেতে। এটাই হবে তার গিফট। বাবা সিওক-উ অফিসের কাজের চাপের অজুহাত দিয়েও মানাতে পারে না। মেয়ের আবদারের কাছে শেষ পর্যন্ত নতি স্বীকার করতে হয় তাকে। শেষ পর্যন্ত মেয়ের আবদার রাখতে বাবা মেয়েকে নিয়ে স্টেশনে উঠে ট্রেনে যাত্রা শুরু করে।

এক গর্ভবতী স্ত্রী ও তার স্বামী, একদল বেসবল খেলোয়াড়, ট্রেনের কর্মচারীসহ আরো অনেকেই রয়েছেন ট্রেনে।

ট্রেনে যাত্রা শুরুর সময় ট্রেনের সুপারিন্টেন্ডেন্টের অগোচরেই ঢুকে যায় একটা মেয়ে। মেয়েটার আচার আচরন বেশ অস্বাভাবিক! সমস্ত হাত-পা, মুখমন্ডল জুড়ে শুধু কাটাকাটির দাগ… একটু পরেই শরীর জুড়ে মেয়েটার তীব্র খিচুনি শুরু হয়। ট্রেনের পাবলিক সার্ভিসে নিয়োজিত হোস্টেস মেয়েটার অবস্থা দেখে এগিয়ে যায় সাহায্য করতে। কিন্তু বিধিবাম! মেয়েটা তখন আর মানুষ নেই, পিশাচ হয়ে গেছে। হোস্টেস মেয়েটার ওপর আক্রমন করে সে। এভাবেই একজন দুজন করে পুরো ট্রেন আস্তে আস্তে জম্বিতে ভরে যেতে থাকে।

সিওক-উ প্রথমে বুঝতে পারে না আসল ঘটনাটা কী। তবে একটা সময় খোঁজখবর করার পরে সে জানতে পারে, পুরো দেশের মানুষ রহস্যময় এক ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়েছে, যে ব্যাধির নেই কোন চিকিৎসা। ভীষণ ছোঁয়াচে এই ব্যাধিটা। আক্রান্ত ব্যক্তি সামনে যাকেই পায় তার উপরই আক্রমন করে বসে। এবং কোন মতে আক্রান্ত ব্যক্তির দাঁতের স্পর্শ লাগা মানেই আপনিও এই ভয়াবহ রোগে আক্রান্ত হয়ে যাবেন। অদ্ভুত রোগে আক্রান্ত মানুষের কামড় থেকে নিমেষেই অগনিত লোক ভয়াবহ রোগে আক্রান্ত হয়ে যাচ্ছে। নেই কোন প্রতিষেধক, নেই কোন চিকিৎসা। আছে শুধু আপনার জীবন। জীবন নিয়ে শুধু পালাতে হবে।

আপনার কাছের বন্ধু, আত্মীয়-স্বজনের কাছ থেকেই আপনি নিরাপদ নন। জীবন-মরণের কঠিন এক পরীক্ষা। ট্রেন থেকে বের হলেও নিস্তার নেই। সব জায়গায় ছড়িয়ে পড়েছে এই বিপদজনক ভাইরাস। শুরু হয় বেঁচে থাকার লড়াই।

ট্রেন মাঝে কয়েকটি স্টেশনে থামার চেষ্টা করলেও ব্যর্থ হয়। কারণ প্রতিটি স্টেশনেই জম্বিরা দখল নিয়েছে। এরপর খবর আসে শুধু বুসান শহরেই কোনো জম্বি নেই। তাই ট্রেন ছুটতে থাকে বুসানের উদ্দেশে। কিন্তু পৌঁছানোর আগেই যা সর্বনাশ হওয়ার হয়ে যায়। ট্রেনের চালকও পরিণত হয় জম্বিতে। ট্রেনেও আগুন ধরে যায়। এর পরও সন্তানের প্রতি বাবার আর স্ত্রীর প্রতি স্বামীর ভালোবাসার টান রেখে যায়।

তবে সিওক-উ কি তার মেয়েকে শেষ পর্যন্ত নিয়ে যেতে পারবে বুসানে, তার মায়ের কাছে? কী অপেক্ষা করছে সিওক-উ, সু-আন এবং তাদের মত অগণিত মানুষের জন্যে?

এই প্রশ্নগুলোর উত্তর মিলবে দক্ষিণ কোরিয়ার সিনেমা “ট্রেন টু বুসান”-এ।

অনেকেই আছেন যারা জম্বি রিলেটেড সিনেমা দেখতে পছন্দ করেন। তবে এই সিনেমা কেবল জম্বির রহস্যভেদ নিয়ে নয়, পুরো সিনেমাটা আবেগ আর ভালোবাসা দিয়ে মোড়ানো।

মেয়ের প্রতি বাবার ভালোবাসা, স্বামী-স্ত্রীর ভালোবাসা, বন্ধুর প্রতি ভালোবাসা, একই সঙ্গে অসহায়ত্ব, কিছু মানুষের স্বার্থপরতা ও সর্বোপরি ভয়ংকর রোমাঞ্চিত ট্রেন ভ্রমণ সবকিছুর এক সুন্দর মিশ্রণ রয়েছে ছবিটিতে। ছবির যে মুহূর্তটি সবাইকে আবেগী করে তুলবে তা হলো, যখন ছবির শেষ দিকে বাবা তার মেয়ের উদ্দেশে বলে, ‘আমি এখনো তোমার বাবা।’

সিনেমাটা যেন রোলার কোস্টারে রাইড করার মতো। রোলার কোস্টারে একবার উঠলে যেমন শেষ না করা পর্যন্ত উঠা যায় না, এই সিনেমার ক্ষেত্রেও দেখা শুরু করলে শেষ না করে উঠা সম্ভব হয় না। ১১৮ মিনিটের টান টান উত্তেজনার ছাপ দর্শক মনে দাগ কেটে যাবে নিশ্চিত।

সিনেমার মূল প্রান অভিনেতাদের অসাধারণ অভিনয়। বাবা সিওক-উ এর চরিত্রে গং ইয়ো এবং পিচ্চি মেয়ে সু-আনের চরিত্রে কিম সু-আন অসাধারন অভিনয় করেছে বলতে হবে!

অন্যদিকে, নেতিবাচক চরিত্রে চোই উ-শিক এর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন ইয়ং-গুক, যার স্বার্থপরতা দেখলে যে কারোরই মনে ক্রোধ আসবে! কিন্তু এতো সিরিয়াস মুহুর্তেও গর্ভবতী নারীর স্বামীর চরিত্রটির কমেডির মন ছুঁয়ে যায়।

সিনেমার ভিজ্যুয়াল এফেক্টের কাজও ছিল চোখে পড়ার মত। নরমাল জম্বি মুভি গুলোতে সিজিয়াই এর কাজ মাত্রাতিরিক্ত থাকলেও এখানে সিজিয়াই ব্যবহারের ক্ষেত্রে ছিল পরিমিতবোধ। পুরো সিনেমা জুড়ে কোথাও বিরক্ত হওয়ার জায়গা নেই।

সবমিলিয়ে সিনেমা প্রেমীদের কাছে ট্রেন টু বুসান সিনেমাটা না দেখার কোনো কারণ নেই।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই মুহূর্তে

নৃবৈজ্ঞানিক গবেষণা পদ্ধতি ব্যবসায়িক পণ্য জরিপ ও বাজার যাচাই করতে খুবই যুগোপযোগী
বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২১
এখন যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশ সদাপ্রস্তুত : প্রধানমন্ত্রী
বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২১
দীর্ঘ ২৪ বছরে পার্বত্য শান্তি চুক্তি, বাস্তবায়ন নিয়ে ক্ষোভ
বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২১
দুই সিটি করপোরেশনের ভাড়াটে চালকরা পালিয়েছেন : নগরজুড়ে বর্জ্যের স্তূপ
বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২১
সাভারে শবে বরাতের রাতে ৬ ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা : ১৩ জনের ফাঁসির আদেশ
বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২১
খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে রাজনীতি করছে বিএনপিঃ বাহাউদ্দিন নাছিম
বুধবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২১
উইঘুরদের নির্যাতন-পীড়নে চীনের নেতারা, ফাঁস জিনজিয়াং পেপারস
বুধবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২১
‘বিজয়ের মাসে ৫জি যুগে প্রবেশ করবে বাংলাদেশ’
বুধবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২১
বাসচাপায় শিক্ষার্থীর মৃত্যুর সঙ্গে জড়িত সন্দেহে বিএনপি!
বুধবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২১
যেসব খাতে পাকিস্তান-ভারতকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ
বুধবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২১
খবরের আর্কাইভ